Home > স্বাস্থ্য > বেগুনি খাবার ভালো কোলেস্টেরল বাড়াতে সাহায্য করে

বেগুনি খাবার ভালো কোলেস্টেরল বাড়াতে সাহায্য করে

প্রতিটি সবজি বা ফলের নিজস্ব রঙ রয়েছে। আপনার খাদ্যতালিকায় রংধনু খাবার অন্তর্ভুক্ত করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ কারণ সেগুলো থেকে আমরা বিভিন্ন পুষ্টি উপাদান পাই, যা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। রেইনবো ফুডসের একটি রং হল বেগুনি, যা থেকে আপনি অনেক সুবিধা পেতে পারেন। চলুন জেনে নিই বেগুনি জাতীয় খাবার কী এবং এগুলো খাওয়ার উপকারিতা কী।

বেগুনি খাবার হল সেই সব ফল ও সবজি যার রং বেগুনি। প্রতিটি ফল বা সবজির রঙ এটিতে উপস্থিত একটি বিশেষ পিগমেন্টের কারণে হয়। অ্যান্থোসায়ানিন নামক পিগমেন্টের কারণে এদের মধ্যে বেগুনি রঙ হয়। যত বেশি পরিমাণে খাদ্যদ্রব্য পাওয়া যায়, তার রঙ তত গাঢ়।অ্যান্টোসায়ানিন একটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা হৃদরোগ, স্নায়বিক রোগ এবং ক্যান্সার প্রতিরোধে কার্যকর। বেগুন, কালো বেগুন, বরই, ব্ল্যাকবেরি, কালো আঙ্গুর, ডুমুর, বেগুনি ভুট্টা, ব্ল্যাকবেরি, লাল বাঁধাকপি, বেগুনি গাজর, বেগুনি আলু বেগুনি খাবারের তালিকায় রয়েছে।

ভাল কোলেস্টেরল
হার্টকে সুস্থ রাখতে হলে ভালো কোলেস্টেরলের পরিমাণ বেশি এবং খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কম রাখতে হবে। বেগুনি খাবার আপনাকে এতে সাহায্য করতে পারে। এতে ধমনীতে জমে থাকা প্লাক পরিষ্কার হয় এবং রক্ত ​​চলাচল সহজ হয়। এতে উচ্চরক্তচাপ ও স্ট্রোকের সম্ভাবনাও কমে।

ক্যান্সার প্রতিরোধ
অ্যান্থোসায়ানিন একটি খুব শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা শরীরের ফ্রি র‌্যাডিক্যাল ক্ষতি কমায়। এ কারণে এটি ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়। এর পাশাপাশি এটি প্রদাহ কমায়।

ওজন কমানো
অ্যান্থোসায়ানিন শরীরের গ্লুকোজের মাত্রা ঠিক রাখতে সাহায্য করে, যার কারণে এটি ওজন কমাতে অনেক সাহায্য করে। এটি মেটাবলিজম ত্বরান্বিত করে এবং লিপিড শোষণ কমিয়ে ওজন কমাতে সহায়ক। বেগুনি খাবারে উচ্চ পুষ্টির ঘনত্ব থাকে, যা ওজন কমানোর একটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ।

খারাপ ত্বক
অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ত্বকের জন্য খুবই উপকারী। এটি ত্বককে ফ্রি র‍্যাডিকেলের ক্ষতি থেকে রক্ষা করে। অ্যান্থোসায়ানিন হল এক ধরনের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা বার্ধক্যের লক্ষণ যেমন বলি এবং দাগ কমিয়ে ত্বককে উজ্জ্বল করে এবং উন্নত করে।

ডায়াবেটিসের ঝুঁকি হ্রাস
নিয়মিত বেগুনি জাতীয় খাবার খেলে ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমে । এগুলিতে পাওয়া অ্যান্থোসায়ানিন প্রদাহ কমাতে সাহায্য করে এবং গ্লুকোজ সহনশীলতা বাড়ায়, যার কারণে শরীর উচ্চ পরিমাণে গ্লুকোজ পরিচালনা করতে সক্ষম হয়। এ কারণে ডায়াবেটিস হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়।

আরও পড়ুনঃ জনগণ যদি চায় বিএনপি আবার ক্ষমতায় আসতে পারবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

Leave a Reply