Home > স্বাস্থ্য > দূষণের মধ্যে আপনার ফুসফুসের যত্ন নিতে যা খাবেন

দূষণের মধ্যে আপনার ফুসফুসের যত্ন নিতে যা খাবেন

ক্রমবর্ধমান দূষণের কারণে আমাদের ফুসফুস ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এ কারণে কাশি, সর্দি, শ্বাসকষ্ট এবং গুরুতর শ্বাসকষ্টের ঝুঁকিও উল্লেখযোগ্যভাবে বেড়ে যায়। এমন পরিস্থিতিতে সুস্থ থাকতে আপনার ফুসফুসের স্বাস্থ্যের বিশেষ যত্ন নেওয়া জরুরি। আজ এই প্রবন্ধে আমরা আপনাকে এমন কিছু সুপারফুড সম্পর্কে বলব, যা ক্রমবর্ধমান দূষণের মধ্যে আপনার ফুসফুসকে স্বাস্থ্যকর করতে সহায়ক প্রমাণিত হতে পারে।

আদার মধ্যে অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি এবং অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্য পাওয়া যায় , যা আপনার ফুসফুসকে সুস্থ রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এটি শ্বাসকষ্টের উপসর্গ কমাতে এবং ফুসফুসের স্বাস্থ্যের উন্নতি করতে সাহায্য করতে পারে।

স্যামন, ম্যাকেরেল, সার্ডিনস এবং ফ্ল্যাক্স-আখরোটের মতো ফ্যাটি মাছের মতো খাদ্য আইটেমগুলি ওমেগা -3 ফ্যাটি অ্যাসিডের দুর্দান্ত উত্স হিসাবে বিবেচিত হয়। এই খাবারগুলিতে প্রদাহ-বিরোধী বৈশিষ্ট্য রয়েছে, যা ফুসফুসের রোগের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করতে পারে।

হলুদ, তার ঔষধি গুণের জন্য বিখ্যাত, শুধুমাত্র খাবারের স্বাদ বৃদ্ধির জন্যই নয়, এর অগণিত উপকারিতার জন্যও পরিচিত। এই রান্নাঘরের মশলাটিতে কারকিউমিন রয়েছে, যা শক্তিশালী অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট্যের জন্য পরিচিত। এই বৈশিষ্ট্যগুলি ফুসফুসে প্রদাহ কমাতে এবং ফুসফুসের কার্যকারিতা উন্নত করতে সহায়তা করে।

রসুন তার প্রদাহরোধী এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিকারী বৈশিষ্ট্যের জন্য পরিচিত। এটি ফুসফুসের ভিড় কমাতে এবং শ্বাসযন্ত্রের স্বাস্থ্যের উন্নতিতেও সাহায্য করতে পারে।

হিন্দু ধর্মে তুলসী গাছের বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। এই কারণেই এখানকার প্রতিটি বাড়িতে তুলসী গাছ রয়েছে। ধর্মীয় গুরুত্বের পাশাপাশি তুলসী তার স্বাস্থ্য উপকারিতার জন্য পরিচিত। নিয়মিত তুলসীর রস পান করলে তা শ্বাসতন্ত্রের দূষিত পদার্থ দূর করতে সাহায্য করে।

আরও পড়ুনঃ ‘দুই রাষ্ট্র’ সমাধান ও স্বাধীন ফিলিস্তিনের অধিকারকে সমর্থন করে ভারত

Leave a Reply