Home > দেশ সংযোগ > আমরা কারও দলে নেই, কারও লেজুড় হতে চাই না: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

আমরা কারও দলে নেই, কারও লেজুড় হতে চাই না: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, আমরা কারও দলে নেই, কারও লেজুড় হতে চাই না। আমরা ছোট দেশ হয়েও বড় দেশের কথা শুনি না। আমরা তাদের জিনিস কিনি না, এ জন্য একটু বেড়াজালে আছি। তবে সব ঠিক হয়ে যাবে।

আজ বৃহস্পতিবার মার্কিন উপসহকারী মন্ত্রী আফরিন আক্তারের সঙ্গে বৈঠক শেষে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাপ্তাহিক ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

ড. মোমেন বলেন, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পর্যবেক্ষক দল এলে ভালো, না এলে আমরা তাদের বিশেষভাবে অনুরোধ করব না। নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হবে বলে আমাদের আত্মবিশ্বাস আছে।

মার্কিন নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে কিছুই জানেন না দাবি করে আব্দুল মোমেন বলেন, নিষেধাজ্ঞা দেবে কি দেবে না তা-ও জানি না। তবে তাদের সঙ্গে আমাদের প্রচুর আলোচনা হচ্ছে।

মন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশে কিছু লোক আছে যারা বিদেশিদের কাছে ভুল তথ্য তুলে ধরে। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আমেরিকার অ্যাকশন সিকিউরিটি অফিসার সদলবলে আসেন। অ্যাডভাইজারও ছিলেন। তারা মাঝপথে থেমে গেছে বলে যে সংবাদ বেরিয়েছে তা মিথ্যা ও বানোয়াট।

শ্রীলঙ্কার বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, শ্রীলঙ্কা গত এক বছরে অভাবনীয় সাফল্য অর্জন করেছে। ৬৯ শতাংশ মুদ্রাস্ফীতি থেকে এক বছরে ৪ শতাংশে নামিয়ে এনেছে। শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট বাংলাদেশ সফরে আসার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন বলেও জানান তিনি।

মন্ত্রী বলেন, দুঃসময়ে সাহায্য করার জন্য শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়েছে শ্রীলঙ্কা। কক্সবাজার-কলম্বো ফ্লাইট চালুর নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে। এ ছাড়া চলমান ফ্লাইটের খরচ কমানোর অনুরোধ জানিয়েছে ঢাকা।

ব্রিফিংয়ে মন্ত্রী বলেন, শ্রীলঙ্কা সফরের সময় মার্কিন উপসহকারী মন্ত্রী আফরিন আক্তার নির্বাচন সম্পর্কে জানতে চান। তখন সরকারের ইচ্ছা সম্পর্কে তাকে জানানো হয়েছে। মানবাধিকার সংগঠন অধিকারের আদিলুর রহমান সম্পর্কে জানতে চাওয়ায় তার অনিয়ম ও দুর্নীতি সম্পর্কে আফরিন আক্তারকে তথ্য দেয়া হয়েছে। এমন তথ্যে তিনি অবাক হয়েছেন। সরকার কোনো ধরনের রাজনৈতিক প্রতিহিংসামূলক আচরণ করছে না বলেও তাকে আশ্বস্ত করা হয়।

আরও পড়ুনঃ পণ্য পরিবহনে সড়কে চাঁদাবাজি বন্ধে জিরো টলারেন্সের ঘোষণা ডিএমপির

Leave a Reply